Sunday , November 29 2020
Breaking News
Home / বিনোদন / বিয়ে করেছেন রাখি!

বিয়ে করেছেন রাখি!

বলিউডের অন্যতম বিতর্কিত অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্ত। মাঝে মধ্যে নতুন নতুন ঘটনার জন্ম দিয়ে আলোচনায় আসেন তিনি। কয়েকদিন আগেই যিনি অভিযোগ করেছিলেন অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত তাকে ধর্ষণ করেছেন। এরপর গণমাধ্যমের খবরে আসেন। এর আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গেও ড্যান্স করতে চেয়েছিলেন। সবশেষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের তারকা দীপক কালালের সঙ্গে বিয়ের ঘোষণা করেন রাখি। তবে এবার শোনা যাচ্ছে, এক প্রবাসী ভারতীয়ের সঙ্গে মুম্বাইয়ের এক পাঁচ তারা হোটেলে বিয়ের কাজ সেরেছেন। এটা তার দুই নম্বর বিয়ে। সংবাদমাধ্যম প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, মুম্বাইয়ের জে ডবিস্নউ ম্যারিয়ট হোটেলে গোপনে বিয়ের পর্ব শেষ করেছেন রাখি। শোনা যায়, দীপক কালাল নন অন্য কাউকে বিয়ে করছেন। ২৮ জুলাই কয়েকজন ঘনিষ্ঠদেরজনদের উপস্থিতিতে এই শুভ কাজ হয়।

সম্প্রতি গুজব উঠেছে ‘ছেলেধরা’, বের হয়েছে দেশে আর তারই পরিপ্রেক্ষিতে গণপিটুনিতে মানুষ হত্যা এক ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। গণপিটুনির এই তালিকায় বাকপ্রতিবন্ধী, ভিক্ষুক, উচ্চ শিক্ষিত নারী কেউ বাদ যাচ্ছে না। এই গুজবের কাছে আমরা কেউ নিজেকে নিরাপদ ভাবতে পারছি না। কখন কে-কাকে বলিরপাঁঠা বানায় কেউ জানে না। সম্প্রতি এক দম্পতি রাস্তায় ঝগড়া করে একে আপরকে ছেলেধরা বলার ফলে দুজনেই গণপিটুনির শিকার হয়েছেন। হায় বিবেকবোধ!

৪ বছরের মেয়ে তুবাকে স্কুলে ভর্তি করানোর খবর নিতে গিয়ে নিজেই গণপিটুনির খরবে পরিণত হয়ে গেল তাসলিমা বেগম রানু। হঠাৎ ছেলেধরা অভিযোগ তুলে রানুর ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে মানুষরূপী জানোয়ারগুলো। যে তুবার ভর্তির খোঁজ নিতে গিয়েছিল, সেই তুবা এখনও জানে না তার মা আর ফিরবে না। তাকে আর কোনো দিন আদর করবে না। গণপিটুনির ভিডিওটি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, কয়েকজন যুবক মারছে রেনুকে আর বাকিরা ভিডিও করছে। কেউ এগিয়ে আসেনি তাকে বাঁচাতে। উচ্চ শিক্ষিত সংগ্রামী এক নারীর ভাগ্যের নির্মম এ পরিণীতি মেনে নেয়া কতটা যুক্তিযুক্ত? কিছু হুজুগে বাঙালি রানু ও তুবাদের স্বপ্ন মুহূর্তের নিঃশেষ করে দিল। গণপিটুনি থেকে বাদ পড়েনি বাকপ্রতিবন্ধী সিরাজ। ২০ জুলাই সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাগলাবাড়ীর সামনে নিজের মেয়েকে দেখতে গেলে গণপিটুনিতে নিহত হয় সিরাজ। অথচ সিরাজ ১০০ টাকা ধার করে নিজের মেয়ের জন্য বিস্কুট, চিপস কিনে দেখা করতে গিয়েছিল সে। ছেলে ধরার অভিযোগ এনে বাকপ্রতিবন্ধী মানুষটিকে পিটিয়ে মাটিতে শুইয়ে লাথির পর লাথি মেরেই চলেছে উৎসুক জনতা। কোন সমাজে বাস করছি আমরা!

About Mamun

Check Also

নির্বাচন কমিশনের লজ্জা শরম হায়া বলতে কিচ্ছু নাই: ফখরুল

আমাদের দেশে যে নির্বাচন কমিশন আছে এটা একটা ঠুটো জগন্নাথ। এদের লজ্জা শরম হায়া বলতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *